BangaliNews24.com

প্রথমবারের মত কৃত্রিম উল্কা পতন ঘটাতে যাচ্ছে জাপান

প্রথমবারের মত কৃত্রিম উল্কা পতন ঘটাতে যাচ্ছে জাপান
অগাস্ট ০৪
২১:০৯ ২০১৮

 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: রাতের আকাশে দেখা যায় বড় একটি আলো আকাশ থেকে ছুটে কোনো এক দিকে যেতে যেতে অদৃশ্য হয়ে যেতে। এ দৃশ্য দেখে অনেকে বিস্মিত হয়। কেউ কেউ একে নক্ষত্রের পতনও বলেন। প্রকৃতপক্ষে এটা মহাকাশ থেকে উল্কা পিন্ড ছুটে আসে। হাজার হাজার বছর ধরেই প্রকৃতির নিয়মে উল্কা পতনের এই দৃশ্য দেখে আসছে মানুষ।

কিন্তু এই উল্কা পতন যতি কৃত্রিমভাবে করা হয় তাহলে কেমন হবে ভাবুন তো? জাপানের একটি কোম্পানি দাবি করেছে যে তারা ২০২০ সালে বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম উল্কা ঝরনা তৈরি করবে। টোকিও ভিত্তিক স্টার্ট-আপ এলএইচটি বলেছে যে এটি দুটি মাইক্রো-স্যাটেলাইট নির্মাণের চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। ওই প্রত্যেকটি স্যাটেলাইটে ৪০০ টি ছোট আকারের বিভিন্ন রঙয়ের পিল্ট বা গোলা বহন করবে। এই গোলা ছোঁড়া যাবে যেকোনো জায়গায়, যেকোনো সময়। আর এই গোলা স্যাটেলাইট থেকে নিক্ষিপ্ত করার পর পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে প্রবেশ করা মাত্রই উজ্জ্বল হয়ে জ্বলে উঠবে, এবং তা পৃথিবী থেকেই দেখা যাবে।

আগামী বছরের মার্চে প্রথম স্যাটেলাইটটি জাপানের স্পেস এজেন্সি মহাকাশে পাঠাবে একটি রকেটের মাধ্যমে। আর দ্বিতীয় স্যাটেলাইটটি পরে একটি বেসরকারি রকেটের মাধ্যমে মহাকাশে পাঠানো হবে। ২০২০ সালের ফেব্র“য়ারিতে পৃথিবীর কক্ষপথে ওই দুটি স্যাটেলাইট পরিক্রমণ করবে। আর সে বছরের বসন্তে হিরোশিমায় অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে কৃত্রিম উল্কা পতনের এক মনোরম দৃশ্য তৈরি করবে।

জাপানের ওই উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানটি বলছে, যদি আবহাওয়া ভালো থাকে, তাহলে হিরোশিমার প্রায় ১২৪ মাইল এলাকার কয়েক লাখ মানুষ এই মনোরম দৃশ্য দেখার সুযোগ পাবে। প্রতিটি তারকার উজ্জল আলো কয়েক সেকেন্ডের জন্য দেখতে পাবে মানুষ। এই কৃত্রিম উল্কা পতনে কোন ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হচ্ছে, তা গোপন রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে নানা রঙয়ের বর্ণিল এক উল্কা পতনের দৃশ্য দর্শকরা দেখতে পারবে বলে জানায় ওই প্রতিষ্ঠান।
সূত্র: স্কাই নিউজ

অন্যান্য খবর

BangaliNews24.com