BangaliNews24.com

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠে

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠে
অগাস্ট ০৮
২৩:২০ ২০১৮

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুকে হত্যা পরবর্তী সুবিধাভোগী খুনী সরকারগুলি আরেকটি ভয়ংকর কলংকজনক চর্চার প্রচলন করে। যা দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে তোলে। জাতির জনক শেখ মুজিবর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর বিচার করা তো দূরের কথা, অবৈধভাবে একটি কালো আইন করে খুনীদের বিচার নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।
বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর খুনীরা ঘৃণ্যতম কাজের ঘোষণা নিজেরাই দেয়, যেখানে সাধারণত খুনীরা নিজেদের গোপন করে। অথচ হত্যাকান্ডের বিন্দুমাত্র আইনী জবাবদিহিতার মুখোমুখি হতে হয়নি জাতির জনকের খুনীদের।
বঙ্গবন্ধুকে হত্যা পরবর্তী খন্দকার মুশতাক সরকার ইনডেমনিটি আইন জারি করে খুনীদের বিচারের পথ রুদ্ধ করে। পরে দেশের প্রথম সেনা শাসক জিয়াউর রহমান সেই বিধান বলবৎ রেখে, সংবিধানের অংশ করে। দ্বিতীয় সেনা শাসক এরশাদ ও বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াও ক্ষমতায় গিয়ে এই জঘণ্যতম কালো আইনটি রেখে খুনীদের বিচারের হাত থেকে রক্ষার অপচেষ্টা অব্যাহত রাখে।
দেশের সর্বোচ্চ আদালত খুনীদের বিচার ঠেকানোর এমন অপকর্মকে মানব জাতি, সভ্যতা ও মানবতাবিরোধী বড় অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। আদালতের ভাষায় “তা ছিল মহা পাপ” আর “পাপ কাউকে ছাড়েনা।”
বঙ্গবন্ধুকে হত্যার ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে, তাঁর বড় কন্যা শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম সরকার গঠন করে। সেই জাতীয় সংসদে এই কালো আইন বাতিল করে- বলা হয়, তা আসলে কোন আইন হবার যোগ্য নয়। তারপর খুলে যায় খুনীদের বিচারের পথ।

অন্যান্য খবর

BangaliNews24.com