BangaliNews24.com

বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে আগ্রহী ব্রিটেন: রোশনারা

বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে আগ্রহী ব্রিটেন: রোশনারা
জুলাই ২২
২৩:৪৩ ২০১৮

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশে সফররত ব্রিটিশ এমপি রোশনারা আলী বলেছেন, বৃটিশ ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক কিভাবে আরো জোরদার করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা চলছে।

বাংলাদেশকে ব্রিটেনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু রাষ্ট্র উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের উন্নয়নে ব্রিটেন খুশি। ব্রিটেন বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার।

রোববার ঢাকার বনানীতে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের বাসভবনে বৈঠককালে এসব কথা বলেন রোশনারা আলী।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাণিজ্য দূত আরো বলেন, ব্রিটেনে বাংলাদেশের তৈরি অনেক পণ্যের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। উভয় দেশের আন্তরিক প্রচেষ্টায় দু’দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ অনেক বৃদ্ধি করা সম্ভব। এজন্য প্রয়োজনীয় বাণিজ্য সুবিধা বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, ব্রিটেন বাংলাদেশের তৈরি পোশাক, এনার্জি ও বিভিন্ন উন্নয়ন খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। উভয় দেশের মধ্যে পর্যটক বিনিময়ের প্রচুর সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে। উভয় দেশের পক্ষ থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করে এ সম্ভাবনাগুলোকে কাজে লাগাতে হবে।

তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশের উন্নতির প্রশংসা করে রোশনারা আলী বলেন, অপ্রত্যাশিত রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পর বাংলাদেশ সরকার ও শিল্প মালিকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় আর কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। এ খাতে আরো উন্নতি করা সম্ভব।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আশা করেন, ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাবার পর (ব্রেক্সিটের পর) বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য আরো বাড়বে।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এ বিষয়ে ব্রিটেনের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে আলাপ আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের রপ্তানিতে তৃতীয় বৃহত্তম বাজার ব্রিটেন। বর্তমানে উভয় দেশের বাণিজ্য প্রায় চার বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা আরো বৃদ্ধি করা সম্ভব।

ব্রিটেন বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে আগ্রহী। বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হচ্ছে। তখন আর জিএসপি সুবিধা থাকবে না, এজন্য বাংলাদেশ ব্রিটেনের কাছ থেকে জিএসপি প্লাস বাণিজ্য সুবিধা প্রত্যাশা করছে। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি শুরু করেছে বাংলাদেশ।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্য ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্রিটেনকে খুবই গুরুত্ব দিয়ে থাকে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেয়া এভ্রিথিংস বাট আর্মস অর্থাৎ ইবিএ-এর আওতায় বাংলাদেশ ব্রিটেনের কাছ থেকে ডিউটি ফ্রি ও কোটামুক্ত বাণিজ্য সুবিধা পেয়ে আসছে। ব্রিটেনে দিন দিন বাংলাদেশের রপ্তানি বাড়ছে।

বৈঠকে ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার উপস্থিত ছিলেন।

অন্যান্য খবর

BangaliNews24.com